১০ উইকেটে পরাজয়ের মধ্য দিয়ে ১০০ তম টেস্ট পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ পেল বাংলাদেশ

টানা বৃষ্টিতেও শেষ রক্ষা হলো না। ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারল বাংলাদেশ। তবে ইনিংসে হারেনি এটাই হয়তো বড় প্রাপ্তি। বৃষ্টির কারণে এক ঘণ্টার মতো খেলা হয়েছিল। তাতেই ৪ উইকেট কব্জা করে নেয় স্বাগতিকরা। ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১২ রানের লিড নিতে পেরেছিল সফরকারীরা। ক্যারিবীয় দুই ওপেনার ২.৫ ওভার ব্যাট করেই সহজ লক্ষ্য টপকে যায়। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ২-০ ব্যবধানে জিতে নিলো ক্রেইগ ব্রাথওয়েটের দল।

 

মুমিনুলের অধীনে টেস্টে ব্যর্থতার পর সাকিবের নেতৃত্বে নতুন শুরুর আশায় ছিল বাংলাদেশ। তবে এবারের শুরুটা হলো আরো ভয়াবহ। লজ্জার হোয়াইটওয়াশে আরো একটি রেকর্ডও গড়েছে বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটে হারের সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছে টিম টাইগার্স। ২০০০ সালে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর ২২ বছরে ১৩৪টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ দল। যেখানে ১০০ হারের বিপরীতে টাইগারদের জয় ১৬টি ও ড্র আছে ১৮টি।

 

বৃষ্টির কারণে চতুর্থ দিনের দুটি সেশন মাঠেই গড়ায়নি। তৃতীয় সেশনে স্থানীয় সময় বিকেলে খেলা শুরু হতেই আবারো সেই বিপর্যয়। আগের দিনে বাকি থাকা চার উইকেট টিকল মাত্র ৫৪ বল। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮৬ রানেই গুঁড়িয়ে গেছে বাংলাদেশের ইনিংস।

 

যদিও নুরুল হাসান সোহানের ব্যাটে ভর করে কোনো রকমে ইনিংস হারের লজ্জা এড়ায় বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা উইকেটকিপার এ ব্যাটার ৫০ বলে ৬০ রানের ক্যামিওতে দলকে লিড এনে দেন। তবে যোগ্য সঙ্গ না পাওয়ায় মাত্র ১২ রানের লিড পায় বাংলাদেশ। কিন্তু ১৩ রানের টাগেট ব্যাট করতে নেমে খুব বেশি সময় নেয়নি ক্যারিবিয়ানরা মাত্র ১৭ বল খেলেই লক্ষ্যে চলে যায় তারা। তাতে আবারও লেখা হয় টাইগারদের টেস্টে ভরাডুবির লজ্জা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.