শরিফুলের ওয়ানডেতে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং

নাসুমের দুর্দান্ত বোলিংয়ে শুরু, পাওয়ারপ্লের পুরোটাই নিজের করে নিয়েছেন অভিষিক্ত টাইগার বাঁহাতি স্পিনার। টানা ৫ ওভার বল করেছেন, ৩ মেইডেনে দিয়েছেন মোটে ৩ রান। এরপরেই অধিনায়ক দিয়েছেন নাসুমকে বিরতি, এনেছেন শরীফুলকে। কি মনে করে যেনো মাত্র একটা ওভারই শরীফুলকে দিয়ে করালেন টাইগার ক্যাপ্টেন। এরপর টানা নয় ওভার গল্পটা মিরাজ-তাসকিন আর ফিজের।

 

১১তম ওভারের পর শরীফুল বোলিংয়ে এসেছিলেন ২১তম ওভারে; মেইডেন ২ উইকেট! প্যাভিলিয়নের পথ দেখিয়েছেন ব্র্যান্ডন কিং এবং শামারহ ব্রুকসকে। সেই স্পেলে শরীফুল বোলিং করেছেন ৩ ওভার; ৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট!২৫ এর পর শরীফুল এসেছেন ৩৪তম ওভারে; এসেই আবারও দুই উইকেট! এবার বাঁহাতি পেসারের শিকার রোমারিও শেফার্ড এবং অভিষিক্ত গুদাকেশ মোতি। ১১০ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৯ উইকেট; বাংলাদেশের প্রয়োজন ১ উইকেট, প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট পূরণ করতে শরীফুলেরও প্রয়োজন একটাই মাত্র উইকেট।

 

কিন্তু আরও ২ ওভার বল করেও শরীফুল পাননি কাঙ্ক্ষিত উইকেটের দেখা। সুযোগ তৈরী করেছেন, কিন্তু ব্যাটে-বলে হয়নি। আক্ষেপে মাথায় হাত দিয়েছেন, কিন্তু মাঠ যখন ছেড়েছেন তখন ঠিকই মুখে ছিল হাসি। হাসি তো থাকারই কথা; ৮ ওভার বল করে শরীফুল যে শুধু ৪ উইকেটই নয়, মাত্র ৩৪ রান দিয়ে ততোক্ষণে করে ফেলেছেন ক্যারিয়ারসেরা বোলিংটাই! আগেরটা ছিল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ৪৬ রানে ৪ উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.